| |

নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে কিশোরগঞ্জে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল ও স্বারকলিপি পেশ

প্রকাশিতঃ ৭:২০ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১৪, ২০১৮

kishoreganj

কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার আয়োজনে আজ ১৪ অক্টোবর রবিবার ঐতিহাসিক শহীদি মসজিদের সামনে হতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে এবং জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জেলা নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি বরাবর স্বারকলিপি পেশ করে।

জেলা সভাপতি মাওলানা আলমগীর হোসাইন তালুকদার নেতৃত্বে মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয় হয়ে আবার শহীদি মসজিদ চত্তরে সমাবেশ করে।

সমাবেশে জেলা নেতৃবৃন্দ ইসলামী আন্দোলনের  ১০ দফা দাবি উপস্থাপন করেন।

১০ দফার মধ্যে রয়েছে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পূর্বে জাতীয় সংসদ ভেঙ্গে দেয়া, নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের মতামত নিয়ে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন বাতিল করে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন, তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচিত সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পূর্ব পর্যন্ত সশস্ত্রবাহিনী মোতায়েন এবং নির্বাচনের দিন সশস্ত্রবাহিনীর হাতে বিচারিক ক্ষমতা প্রদান, নির্বাচনে সকল দলের জন্যে সমান সুযোগ তৈরীর লক্ষ্যে রেডিও, টিভিসহ সকল সরকারী  বেসরকারী গণমাধ্যমে সবাইকে সমান সুযোগ দিতে হবে এবং রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে সকল ধরনের হয়রানী বন্ধ, দুর্নীতিবাজদেরকে নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণা, নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার বন্ধ রাখা, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, জাতীয় সংহতি ও কার্যকর সংসদ প্রতিষ্ঠায় জাতীয় নির্বাচনে সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতির (চ.জ) নির্বাচন ব্যবস্থা প্রবর্তন করা, কোটা সংস্কার আন্দোলন এবং নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে গ্রেপ্তারকৃত সকল ছাত্রদের মুক্তি এবং তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মামলা প্রত্যাহারসহ গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রণের উদ্দেশ্যে প্রণীত বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করার দাবি।

স্মারকলিপি পেশ পরবর্তী কর্মসূচিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার আবারো ৫ জানুয়ারি মত নির্বাচনের চেষ্টা করছে। নির্বাচনের নামে তামাশা করার সুযোগ সরকারকে দেয়া হবে না। তাই নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের বিল পাশ করে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পূর্বে জাতীয় সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় ব্যক্তির হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে। বর্তমান নির্বাচন কমিশন অযোগ্য ও দলীয় আজ্ঞাবহ তাও প্রমাণিত হয়েছে। এই কমিশনের পদত্যাগ এবং নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে নিবন্ধিত সকল দলের মতামতের ভিত্তিতে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের দাবি জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ৫ অক্টোবরের মহাসমাবেশে ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে রবিবার জেলা জেলায় সমাবেশ ও জেলা প্রশাসকের নিকট ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নে স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচি পালন করে।

বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কিশোরগঞ্জ জেলা নেতৃবৃন্দ, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন কিশোরগঞ্জ জেলা সভাপতি মাওলানা শফিকুল ইসলাম ফারুকী, ইসলামী যুব আন্দোলন সভাপতি মুফতি বরকত হোসাইন, ইশা ছাত্র আন্দোলনসহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়।

0Shares