কনকনে শীতে জুবুথুবু অবস্থা। শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচতে সূর্যের আলোবিহীন সময় কাটে বাড়ির চার দেয়ালের মাঝে।
পানি গরম না করে ওযু গোসল করা এখানে ভয়াবহ রকম দুঃসাহসিক কাজ।

৩দিনব্যাপী বিশাল এই ইজতেমায় আমীরুল মুজাহিদীন হযরত পীর সাহেব চরমোনাই, মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম সাহেবসহ শীর্ষ ওলামা মাশায়েখগণ নসীহত পেশ করবেন। ১বেলা মা বোনদের জন্য খাছ নসীহতও পেশ করা হয়। ছাত্রদের, যুবকদের এবং শ্রমিক ভাইদের উদ্দেশে আলাদাভাবে নসীহত করা হয়।
ওলামায়ে কেরামের মধ্যে রয়েছেন, আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী, মাওলানা আব্দুল হক আজাদ, মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল ফরিদী, মুফতী হেদায়েতুল্লাহ আজাদী, মুফতী উমর ফারুক বিন নূরী প্রমুখ।

দেশের বিভিন্ন স্থানের ৩দিনের মাহফিলগুলো সাধারণত বাদ আছর থেকে রাতে অনুষ্ঠিত হলেও এখানে ব্যতিক্রম। এখানে ৩দিন মানুষ মাঠে অবস্থান করে এবং সার্বক্ষণিক নসীহত, তালীম ও জিকির আজকার চলে। শীতের রাত্রে মাঠে অবস্থানের যে কী কষ্ট, তা সত্যিই বর্ণনাতীত। হালকা ছামিয়ানা শিশিরে ভিজে শুয়ে থাকা মানুষের উপর ফোটায় ফোটায় পানি পড়ে সারারাত। তবুও খুশিমনে সব মেনে নিয়ে মানুষ
আল্লাহকে পেতে অনড়।

হে আল্লাহ! দারিদ্রপীড়িত এলাকার এই বিশাল দ্বীনি ইজতেমাকে আপনি কবুল করে নিন, আমীন।

Facebook Comments