নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশের রাজনৈতিক ও ঐতিহাসিক মুক্তি সংগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়ের একটি ছাত্র জনতার ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান। ২৪ জানুয়ারি ১৯৬৯, অবিচারের বিরুদ্ধে সংগ্রামের মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছিলো বাঙালি জাতির স্বাধিকার আন্দোলনের অন্যতম মাইল ফলক গণঅভ্যুত্থান।

ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান এর পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন এর কেন্দ্রীয় সভাপতি ছাত্রনেতা শেখ ফজলুল করীম মারুফ, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি শেখ মুহাম্মাদ সাইফুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল এম. হাছিবুল ইসলাম এক যৌথ বিবৃতিতে গণঅভ্যুত্থানে আত্মোৎসর্গকারী শহিদদের কথা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে আরো বলেন, ঊনসত্তর ছিল জালিমের বিরুদ্ধে মাজলুমের সংগ্রাম, সকল বৈষম্যকে দূর করে সাম্য প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম।

ইশা ছাত্র আন্দোলন মহান মুক্তিযুদ্ধের ঘোষনা পত্রে উল্লেখিত সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার প্রতিষ্ঠায় সারা বাংলাদেশে বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, স্কুলসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধারাবাহিক কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। তারা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ডাকসু নির্বাচনে অংশগ্রহণ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বৈষম্যমূলক আচরণ ঊনসত্তরের চেতনা কে ম্লান করে দিচ্ছে।

ঊনসত্তরের চেতনা ঐক্যের, বিভেদ ও বিসংবাদের নয়। নেতৃত্রয় আরো বলেন, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের চেতনাকে ধারণ করে ডাকসু নির্বাচনে সকল সংগঠনের অংশগ্রহণে একটি বৈষম্যহীন নির্বাচন আয়োজনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান। এতে ক্যাম্পাসে বৈচিত্রের মাঝে সম্প্রীতির সৃষ্টি হবে বলে, আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Facebook Comments