| |

বর্ষবরণের নামে নারীর শ্লীলতাহানি বরদাশত করা হবে না : অধ্যক্ষ ফজলে বারী মাসউদ

প্রকাশিতঃ ৭:০২ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১২, ২০১৮

শেখ ফজলে বারী মাসউদ

জাতিসত্ত্বা, চেতনাবোধ ও বিশ্বাস বিরোধী হিন্দুত্যবাদী পহেলা বৈশাখকে বেহায়াপনা আর অশ্লীলভাবে উদযাপনের চলমান প্রথাকে বন্ধ করতে হবে। বর্ষবরণে নামে মঙ্গল শোভা যাত্রা, প্রাণির বিকৃত মুখোশ নিয়ে নারী-পুরুষের এক সাথে মিছিল করা দিল্লীর সংস্কৃতি। এটা বাংলাদেশী সংস্কৃতি নয়। কোন মুসলমান মঙ্গল শোভা যাত্রায় অংশ নিতে পারে না। এটা র্শিক এর অন্তর্ভূক্ত।

গতকাল বুধবার (১১ এপ্রিল’১৮ইং) বিকাল ৪টায় রাজধানীর রূপনরগরস্থ থানা কার্যালয়ে ঢাকা-১৬ আসন (রূপনগর, পল্লবী) নির্বাচন পরিচালনা কমিটির যৌথ সভায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওঃ শেখ ফজলে বারী মাসউদ উপর্যুক্ত কথা বলেন।

থানা সভাপতি হারুন আর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন নগর উত্তর সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঢাকা-১৬ আসনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর পার্থী হাফেজ মাওলানা সিদ্দিকুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নগর উত্তর অর্থ সম্পাদক এ কে এম নাজমুল হক, পল্লবী থানা শাখার সভাপতি আলহাজ্ব গোলাম মোস্তফা, সেক্রেটারী আব্দুল গণি, পল্লবী থানা শাখার সেক্রেটারী মাওলানা খলিলুর রহমান প্রমুখ। তিনি বলেন, ১লা বৈশাখের বর্তমান অপসাংস্কৃতিকে আমাদের সাংস্কৃতি বলে চালিয়ে দেয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এটা চরম মিথ্যাচার।

মঙ্গল শোভাযাত্রা প্রথম শুরু করে ১৯৮৬ সালে যশোরের একটি একটি সংগঠন। পরে তা বানিজ্যিকীকরণের হীন স্বার্থে অন্যান্য শহরে ছড়িয়ে দেয়া হয়। বর্তমানে এসবের মাধ্যমে দেশের সর্বত্র অশ্লীলতার প্রসার ঘটানো হচ্ছে। অথচ আমাদের দেশজ সংস্কৃতির মধ্যে ছিল সামাজিক শিষ্টাচার, সৌহার্দ্য, জনকল্যাণ, মানবপ্রেম ইত্যাদি। অন্যদের প্ররোচনায় এ সকল মূল্যবোধ আমরা সমাজ থেকে তুলে দিচ্ছি। অধ্যক্ষ মাসউদ আরো বলেন, পহেলা বৈশাখের নামে ব্যবসায়ী কোম্পানীগুলো নীতিহীন ভ্রষ্ট, কনসার্ট, নাটক-সিনেমা, সিরিয়াল, টেলিফ্লিম, ফ্যাশন শো, আঁট-সাঁট অশ্লীল পোষাকী সংস্কৃতিকে বাজারজাত করছে।

এতে বেহায়াপনা ব্যাপক হারে বিস্তার করায় নৈতিক অধঃপতন চরম আকার ধারণ করেছে। অতএব, নতুন প্রজন্ম, দেশের সাংস্কৃতি ও সামাজিক বন্ধন টিকিয়ে রাখতে হলে অনতিবিলম্বে বর্ষবরণের নামে এসব অপসাংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে।

1638Shares