| |

একই মঞ্চে চরমোনাই ও ছারছীনা: ঐক্যের রূপকার শায়েখ চরমোনাই (রহ.) কে মনে পড়ে

প্রকাশিতঃ ১০:২৪ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৩, ২০১৮

সৈয়দ বেলায়েত হোসেন: আত্মশুদ্ধি ও দীন বিজয়ের অতন্ত্রপ্রহরি, আপোষহীন সমাজসংস্কারক, যুগের রাহবার আল্লামা সৈয়দ ফজলুল করীম পীর সাহেব চরমোনাই রহ.-কে আজ বড্ড মনে পড়ে।

ইসলাম নিছক ধর্মের নাম নয় বরং মানুষের পরিপূর্ণ জীবন ব্যবস্থার নাম হলো ইসলাম। নামাজ যেমন একটি ফরজ ইবাদত, তেমনি ইসলামী রাজনীতি/আন্দোলনও একটি ফরজ ইবাদত বরং ফরজে আইন। দেশের স্থায়ী শান্তি, মানবতার সার্বিক মুক্তি কোন পথে? পুঁজিবাদী গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ না-কি ইসলামে? শান্তি ও মুক্তির একমাত্র রক্ষাকবজের নাম ইসলাম। -একথাগুলো দেশপ্রেমিক ঈমানদার জনতাকে বুঝাতে সক্ষম হয়েছিলেন হযরত পীর সাহেব চরমোনাই রহ.।

দীনের নিবেদিত প্রাণ দায়ী হিসেবে আল্লামা ফজলুল করীম রহ. “আল হাক্কু মিল্লাতুন ওয়াহিদার” কাতারে সকলকে ঐক্যবদ্ধ করতে তিনি তাঁর শান-শওকতকে ভুলে সকলের দাড়ে দাড়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন। মরহুম মাও. আব্দুল মান্নান রহ.-এর উপস্থিতিতে তার জাতীয় দৈনিক ইনকিলাব ভবনে ঐক্যের জন্য ছারছীনার বর্তমান পীর সাহেব হুজুর ও বায়তুশ্ শরফের পীর সাহেব আ. জব্বার রহ.-এর সাথে বৈঠক করেছিলেন পীর সাহেব চরমোনাই রহ.।

রাষ্ট্রের সর্বত্র ইসলামকে বিজয়ী করতে ঐক্যের জন্য হযরত পীর সাহেব চরমোনাই রহ. কী-না করেছেন? তাবলীগের মারকায, টঙ্গির ইজতেমা বলেন, পীর সাহেবদের দরবার বলেন, মাদ্রাসা আর খানকা এবং মৃত্যুপ্রায় ইসলামী দলের নয়াজীবনদান বলেন, ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের জন্য সকলের দাড়ে কড়া তিনি নেড়েছিলেন। তিনিই কুতুবুল আলম সৈয়দ ফজলুল করীম রহ.।

যিনি বিনা দাওয়াতে একমাত্র ইসলামের স্বার্থে ছারছীনা শরীফ-এ পীর সাহেব ছারছীনার বাৎসরিক মাহফিলে হাজির হয়েছিলেন। এটাই ধ্রুব সত্য। ছারছীনা ও চরমোনাই একই আত্মার আত্মিয় তা প্রমাণে আজীবন চরমোনাই মাহফিলের দাওয়াত রেখে বলেছিলেন, আসবেন চরমোনাইতে, যত ঘন্টা পারেন বয়ান করবেন। আমি পাশে বসে বয়ান শুনবো ইন শা আল্লাহ।

চরমোনাইতে ছারছীনার আগমন আবার ছারছীনাতে চরমোনাইর গমন, এযে ঐক্যের সেতুবন্ধন। দীনবিজয়ে উভয়ই যেন হতে পারে একই আত্মার পরম আত্মিয়।

উল্লেখ্য যে এবার চরমোনাই বাৎসরিক মাহফিলে ছারছীনার পীর সাহেব কে চরমোনাই মাহফিলে দাওয়াত দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু ব্যস্ততার জন্য তিনি আসতে পারেননি । ১০ মার্চ ছারছীনা শরীফের প্রতিনিধি চরমোনাই আসেন ছারছীনা বাৎসরিক মাহফিলে দাওয়াত নিয়ে। এবং চরমোনাই পীর সাহেবের প্রতিনিধি হয়ে নায়েবে আমিরুল মুজাহিদীন মুফতি সৈয়দ মুহা. ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই ছারছীনা শরীফে তাশরীফ আনেন এবং বয়ান পেশ করেন।

8016Shares