| |

একজন মুসলমান ইসলামের পক্ষে রায় দিবে এটাই ঈমানের দাবী : শায়েখ চরমোনাই

প্রকাশিতঃ ৯:৫২ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৯, ২০১৮

মাহফিল প্রতিবেদক টিম:

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহা. রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলেছেন, অনেকে চরমোনাই পছন্দ করে না। কারণ তারা রাজনীতি করে। আমি বলবো, পীর হয়ে যদি রাজনীতি না করি, তাহলে তো পেটনীতি করতে হবে। বাংলাদেশের অনেক পীর আছে, যারা হক কথা বলে না। খানকায় বসে বসে পেটপূজা করে। আমরা চাইলেও তো খানকায় বসে থাকতে পারতাম। সব দলের লোকেরা আমাদেরকে ভালবাসতো। হাদিয়া দিতো। তারপরেও আমরা রাজনীতি করি কেন? আমরা শুধুমাত্র আল্লাহর এবাদতের উদ্দেশ্যে রাজনীতি করি।

তিনি বলেন, রাজনীতির মাঠেও যদি আমরা ধান্দাবাজির রাজনীতি করতাম, তাহলে বিএনপি আওয়ামীলীগ আমাদেরকে বিশ ত্রিশটা আসন দিতো। আমরা ইবাদতের নিয়্যতে রাজনীতি করি বলে ওসব নিয়ে আমরা চিন্তা করি না। আমাদের সাধ্য অনুপাতে দীন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করে যাচ্ছি। ফলাফল আল্লাহর হাতে।

শুক্রবার (৯ মার্চ) চরমোনাই’র বার্ষিক মাহফিলের ৩য় দিনের ২য় অধিবেশনে (বাদ মাগরিব) বয়ানে আমীরুল মুজাহিদীন মুফতী সৈয়দ মুহা. রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আব্বাজান (মাওলানা সৈয়দ (ফজলুল করীম রহ.) বলতেন, “ভোট একটি স্বাক্ষী। আমার স্বাক্ষী একজন দুর্নীতিবাজের পক্ষে দিয়ে তার অন্যায়ের ভাগিদার হবো, আমি এমন বোকা নই। আমার ভোট আমি একজন দীনদার ব্যক্তিকেই দিবো”।

পীর সাহেব চরমোনাই আরো বলেন, ভোটের সময় আমাদের সামনে বিভিন্ন শ্লোগান আসে। কেউ শেখ মুজিবের আদর্শ আবার কেউবা জিয়াউর রহমানের আদর্শ প্রতিষ্ঠার অঙ্গিকার করে; আবার কেউ কেউ নির্বাচিত হয়ে কুফরি মতবাদকে হটিয়ে আল্লাহর বিধান কায়েমের অঙ্গিকার করে। আপনি একজন মুসলমান হিসেবে ইসলামের পক্ষে স্বাক্ষী প্রদান করবেন, এটাই ঈমানের দাবি।

এরপর শায়েখ চরমোনাই ঘোষণা করেন, ইনশাআল্লাহ্ আগামী নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ৩০০ আসনেই হাতপাখা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে।

6625Shares