| |

হাওরের সৃষ্ট দূর্যোগ মোকাবেলায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন : ইশা ছাত্র আন্দোলন ফতুল্লা থানা

প্রকাশিতঃ ২:৫২ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৬, ২০১৭

স্টাফ রিপোর্টার : আজ ২৬ এপ্রিল রোজ বুধবার সকাল ১০টায় ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ফতুল্লা থানা শাখা কর্তৃক আয়োজিত “হাওর অঞ্চলের বন্যার্তদের মাঝে জরুরী ত্রাণ সহযোগিতা” বিষয়ে জরুরি বৈঠক ফতুল্লা থানা সভাপতি আব্দুল্লাহ মুহাম্মদ হাসান এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদকের সঞ্চালনায় পাগলা বাজার সংলগ্ন আই.এস.সি.এ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।

সভাপতির বক্তব্যে আব্দুল্লাহ মুহাম্মদ হাসান বলেন, হাওর অঞ্চলের জনগণ এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে। বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে হাওরের ফসল ও মাছের ক্ষতি হয়েছে, তাতে জাতীয় অর্থনীতিতে বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে। হাওরের পানিতে তেজষ্ক্রিয় বিষের উপস্থিতির ব্যাপারে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। অবিলম্বে হাওর এলাকাকে দুর্যোগ ও উপদ্রুত এলাকা হিসেবে ঘোষণা প্রদানের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা দরকার। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শস্য ও মৎস্য ব্যাংক ভাটিবাংলা-হাওর এলাকার প্রায় ১২ আনাই অকালে ডুবে গেছে। কতিপয় দুষ্কৃতকারী জনসেবক ও উন্নয়ন কর্মীদের চরম অবহেলা, দায়িত্বহীনতা ও সরকারি উন্নয়নের টাকা লুটপাট করার কারণে বেড়িবাঁধের অপর্যাপ্ততা ও সংস্কারের অভাবে হাওরের আকাশে বাতাসে এখন চলছে সাহায্যের কান্না। অতএব জাতীয় এই দূর্যোগ মোকাবেলায় সরকারের সাথে সাথে দুর্গত মানুষের এই বিপদের সময় দেশের বিত্তশালীরাসহ আমাদের সকলকে তাদের পাশে দাঁড়ানো দরকার।

বৈঠকের এক পর্যায়ে সৃষ্ট এই দূর্যোগের ফলে প্রাপ্ত হাওর অঞ্চলের সর্বশেষ ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তুলে ধরা হয়। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ-

*হাওরের ২ লাখ হেক্টর জমির ৫ লাখ টন ধান সম্পূর্ণ নষ্ট হয়েছে। যার বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় ১ হাজার কোটি টাকা। যার ফলে হাওর অঞ্চলের প্রায় ১২ লক্ষ কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

*নষ্ট হয়ে গেছে প্রায় ১৫০০ টন পরিমাণ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। যার বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় ৫০ কোটি টাকা। কেবল মৌলভীবাজার এর হাওরেই নষ্ট হয়েছে প্রায় ২৫ টন পরিমাণ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ।

*প্রায় ৪০০০ এর মতো বিভিন্ন প্রজাতির হাঁস মারা গেছে। গবাদিপশুর সংখ্যাও অনেক।

*হাওর অঞ্চলের পানির pH এর মান ৩-৪ এ নেমে গিয়ে অনেকটাই এসিডে পরিণত হয়েছে। যেখানে পানির স্বাভাবিক pH এর মাত্রা থাকার কথা ছিলো ৭। অবশেষে হাওর অঞ্চলের ত্রাণ সহযোগিতার ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ কিছু সিদ্ধান্তগ্রহণ করা হয়। পরিশেষে সভাপতির দোয়া ও মোনাজাতের মাধ্যম্যে জরুরি বৈঠক সমাপ্ত করা হয়।

 

513Shares