| |

সংলাপ ইসির সঙ্গে হতে পারে; প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে নয় : গাজী আতাউর রহমান

প্রকাশিতঃ ১:০০ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ০৭, ২০১৮

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরিতে রাজনৈতিক দলগুলো প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপ করছে। ইতোমধ্যেই ঐক্যফ্রন্ট, যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় পার্টিসহ অধিকাংশ দলের সঙ্গেই সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পরশু জাতীয়পার্টির সঙ্গে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস এবং গতকাল ইসলামী ঐক্যজোটসহ আরও ৭ টি ইসলামী দলের সঙ্গেও সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইসলামী দলগুলোর মধ্যে বৃহৎ দল ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। দলটি ৩০০ আসনেই প্রার্থী দেবে বলে ঠিক করেছে।

কিন্তু সংলাপের ব্যাপারে দলটিকে এখনো এগিয়ে আসতে দেখা যায়নি। আগ্রহও প্রকাশ করেনি। তাহলে কি নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরিতে সংলাপে আগ্রহী নয় ইসলামী আন্দোলন? এ বিষয়ে দলের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমানের সঙ্গে কথা বলেছেন আল ফাতাহ মামুন।

রাজনৈতিক দলগুলো প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপ করছে। ইসলামী আন্দোলন এ বিষয়ে কী ভাবছে?

নির্দিষ্ট কিছু দাবি সামনে রেখে সংলাপ করছে রাজনৈতিক দলগুলো। সে হিসেবে আমাদের যে দাবি আছে, ৫ অক্টোবরের সমাবেশে আমরা তা পেশ করেছি। রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকও দিয়েছি। আমরা এখনো সংলাপের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি না।

সমাবেশ আর সংলাপ তো এক নয়…

তা ঠিক। কিন্তু যারা সংলাপ করছে, তাদের তো প্রধানমন্ত্রী ডাকেনি। নিজেরা আগ্রহ করে চিঠি দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী তাদের সঙ্গে সংলাপ করছে।

আপনারাও প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেন। সংলাপ করুন।

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আমরা নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপ করতে পারি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কেন করব? নির্বাচনের মাঠে প্রধানমন্ত্রী এবং আমি দু’জনইে সমান। তিনিও প্রার্থী, আমিও প্রার্থী। তাহলে তার সঙ্গে কেন সংলাপ হবে।

আপনি বলতে চাচ্ছেন, প্রধানমন্ত্রীল সঙ্গে সংলাপের কোনো যর্থাথতা নেই।

সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ তো তিনিই লঙ্ঘন করছেন সংবিধান পরিবর্তন করে। দলীয় অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন কীভাবে হয়?

বিষয়টি আরেকটু ব্যখ্যা করুন।

প্রধানমন্ত্রীও একসময় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য আন্দোলন করেছেন। এখন তিনিই এটি বাতিল করেছেন। এভাবে দলীয় সরকারের অধীনের নির্বাচন হলে সুষ্ঠু নির্বাচন কীভাবে হবে? আবার এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেই সংলাপ, ব্যাপারটি খুবই দুর্ভাগ্যজনক।

তার মানে ইসলামী আন্দোলন সংলাপ করছে না?

প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে সংলাপ করবে না ইসলামী আন্দোলন। সংলাপ হলে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে হতে পারে। কোনো রাজনৈতিক দলের প্রার্থীর সঙ্গে নয়।

 

আওয়ার ইসলাম

0Shares