| |

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে তাদের সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসুন: পীর সাহেব চরমোনাই

প্রকাশিতঃ ৮:১৯ পূর্বাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৪, ২০১৭

আইএবি নিউজ : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম- পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, মিয়ানমারে সামরিক জান্তা-পুলিশ ও সন্ত্রাসী বৌদ্ধদের দ্বারা বর্বরোচিত রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা, ধর্ষণ, বাড়ী-ঘরে অগ্নিসংযোগ ও নির্যাতন ও দেশছাড়া করা অব্যাহত রেখেছে। জান্তাদের নির্যাতনে দেশত্যাগ করে আসা মুসলমানদের জন্য সীমান্ত খুলে দিয়ে তাদের আশ্রয় দিতে হবে। কোনক্রমেই তাদেরকে নির্মমতার দিকে ঠেলে দেয়া যাবে না। সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের সকল প্রকার নাগরিক ও মানবিক অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য অং সান সু কে কড়া চাপ প্রয়োগ করতে হবে।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশে আশ্রয়গ্রহণকারী সকল রোহিঙ্গাকে তাদের স্বদেশ মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিয়ে নাগরিক সকল সুবিধা দিতে হবে। গণহত্যা ও ধর্ষণের বিচার এবং মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যে মানবিক বিপর্যয় রোধ এবং শান্তি প্রতিষ্ঠায় জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনী মোতায়েন করতে হবে।

এক বিবৃতিতে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, মিয়ানমারে মুসলমানদের নির্যাতনের চিত্র দেখে বিশ্ববিবেক নাড়া দিলেও পাষন্ড বৌদ্ধ জান্তাদের হৃদয় একটুও কাঁপেনি। মিয়ানমারে অব্যাহত মুসলিম গণহত্যা বন্ধ করতে বাংলাদেশ সরকারকে কড়া বার্তা দিতে হবে সু চি কে। বাংলাদেশ আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসা স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানগুলোকে সহযোগিতার জন্য সুযোগ করে দিতে হবে।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের হাজার হাজার মুসলমান নারী, শিশু, পুরুষকে ইতিহাসের সবচেয়ে পৈশাচিকভাবে হত্যা করা হয়, আগুনে পুড়িয়ে মারা হচ্ছে যা যে কোন বিবেককে কাঁদিয়ে তুলে? আশ্রিত ও নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলমানদের প্রতি আপনি সদয় হোন। তিনি জাতিসংঘসহ বিশ্ব নেতৃত্বকে রোহিঙ্গাদের বিষয়ে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা নেয়ার আহবান জানান।

তিনি আরো বলেন, নব্য হিটলার অং সান সু চির হাত মুসলমানের রক্তে রঞ্জিত। সে শান্তির নোবেল পাওয়ার উপযুক্ত নয়, কাজেই সু চির নোবেল পুরস্কার ফিরিয়ে নিতে হবে। আমরা মুসলমান, রোহিঙ্গারাও মুসলমান। তাদের বসতভিটা আরাকান বাংলাদেশের অংশ। আরাকানকে বাংলাদেশে ফেরত দিতে হবে।

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE