| |

রামগঞ্জের ২নং নোয়াগাঁও ইউনিয়নে ইসলামী আন্দোলনের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

প্রকাশিতঃ ৪:৩০ অপরাহ্ণ | মে ২৮, ২০১৮

পারভেজ, রামগঞ্জ (উপজেলা) প্রতিনিধিঃ গতকাল রবিবার (২৭ মে) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রামগঞ্জ উপজেলা আওতাধীন ২নং নোয়াগাঁও ইউনিয়ন শাখা কর্তৃক আয়োজিত রমজানের তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইফতার মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর মুজাহিদ কমিটির নায়েবে সদর হযরত মাওলানা জুবাইর আহমেদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রামগঞ্জ উপজেলা সভাপতি মাওলানা মোহাম্মদ হোসাইন আহমদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি, লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনের এমপি পদপ্রার্থী ডাক্তার মোঃ রফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মাকসুদুর রহমান, ইশা ছাত্র আন্দোলন রামগঞ্জ উপজেলা সভাপতি মোঃ ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।

প্রধান বক্তা তার আলোচনায় বলেন, সমাজের মধ্যে পরিপূর্ণ ইসলামী আদর্শ না থাকার কারণেই অনৈতিক কর্মকান্ডগুলো হচ্ছে। মানুষের মাঝে ইসলামী আদর্শের দাওয়াত পৌঁছে দিতে হবে, ইসলামী আন্দোলনের গুরুত্ব মানুষের মাঝে তুলে ধরতে হবে। তিনি বলেন, রমজান মাস গুনাহ মাফের মাস, সিয়াম সাধনার মাস। এই সিয়াম সাধনার মাসে আমাদেরকে সমাজের মধ্যে দুর্নীতি, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস, মাদক ও অনৈতিক কর্মকাণ্ডগুলো সমাজ থেকে দূর করার শপথ গ্রহণ করতে হবে।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ডা: রফিকুল ইসলাম তার আলোচনায় বলেন, মাদকের মতো বিষাক্ত অভিশাপ থেকে বাঁচতে হলে ইসলামী আদর্শের বিকল্প নেই। তিনি আরো বলেন, মাদক নিয়ে সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে এমন সিদ্ধান্তকে আমরা সাধুবাদ জানাই তবে সরকারকে মাদক আমদানিকারকদেরকে চিহ্নিত করতে হবে, যাদের কারণে এ সমাজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে, তাদের মধ্যে রয়েছে আপনার মন্ত্রী-এমপি এমনকি সরকারি কর্মকর্তাও- তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। মাদকের মূলোতপাটন হয়ে গেলেই সমাজ থেকে মাদক দূর করা সম্ভব হবে তা না হয় বোকামি ছাড়া আর কিছুই হবে না।

নির্বাচন নিয়ে রফিকুল ইসলাম বলেন, নির্বাচন এলেই প্রার্থীদের মায়া মহাব্বত বেড়ে যায়, সাধারণ মানুষের ওপর তাদের আস্থা বেড়ে যায় কিন্তু নির্বাচিত হওয়ার পর তার সেই পদক্ষেপ আর মনে থাকেনা, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বিশ্বাস করে সমাজের মধ্যে ইসলামী আদর্শ বাস্তবায়ন ছাড়া সমাজের মধ্যে শান্তি আসতে পারে না। পীর সাহেব চরমোনাই ইসলামী আদর্শের দাওয়াত মানুষের মাঝে পৌঁছে দিতে হাতপাখার প্রতীক নিয়ে মানুষের দাড়ে দাড়ে ছুটছেন। অতএব দল-মত নির্বিশেষে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাতপাখা প্রতীকে ভোট দিয়ে পীর সাহেব চরমোনাই’র হাতকে শক্তিশালী করে গণমানুষের দাবি আদায়ে এগিয়ে আসবেন বলে আমরা আশাবাদী।

116Shares