| |

রমজানের বাজারকে মুনাফাখোর সিন্ডিকেট মুক্ত করতে হবে: ইঞ্জিনিয়ার গিয়াস উদ্দীন

প্রকাশিতঃ ২:০৫ অপরাহ্ণ | মে ১৬, ২০১৮

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তরের আওতাধীন মোহাম্মদপুর থানা শাখার উদ্যোগে মঙ্গলবার (১৫ মে) বাদ আছর রায়ের বাজার কেন্দ্রীয় মসজিদ থেকে মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে বিশাল স্বাগত মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের থানা সভাপতি দেওয়ান মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি এইচ এম নিজাম উদ্দিনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তরের সহ-দফতর সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন পরশ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, মহিমান্বিত মাস রমজান সমাগত। এ মাসের যথাযথ মর্যাদা রক্ষার জন্য সর্বস্তরের মুসলমানকে এগিয়ে আসতে হবে। এ মাসে প্রয়োজন ছিল নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্য নাগালের ভিতরে রাখা। অথচ প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও সরকার দলীয় কিছু মুনাফাখোর রাজনৈতিক ডাকাত ও ব্যবসায়ীদের যোগ সাজশে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। অথচ মুসলিম ও অমুসলিম অনেক রাষ্ট্রতেই অন্যান্য মাসের তুলনায় এ মাসে দ্রব্যমূল্য কমিয়ে দেয়া হয়। আজ আমার দেশের বাজারের দিকে তাকালে মনে হয় এদেশের সকল শাসক দলের নেতাদের “বিবেক ও মানবতা ভূলুণ্ঠিত”।

তিনি আরো বলেন, রমজানে যাতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানগণ অফিস আদালত শেষ করে নিজ নিজ ঘরে ফিরে পরিবারের সদস্যদের সাথে ইফতারি ও ইবাদত-বন্দেগী করতে পারে এ জন্য নগরীর জানজট নিরসনে সকল প্রকার ব্যবস্থাপনা সরকার ও প্রশাসনকে গ্রহণ করতে হবে। পাশাপাশি সারাদেশে তারাবীহ ও সেহরির সময় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা সরকারকেই করতে হবে।

বরিশালের বাকেরগঞ্জে ইমামের মাথায় মল-মূত্র ঢেলে লাঞ্চিত করার ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ইঞ্জিনিয়ার গিয়াস উদ্দিন বলেন, একজন শিক্ষক ও ইমামকে প্রকাশ্যে যেভাবে লাঞ্চিত ও অপমান করার ঘটনা ঘটেছে তা দেশের ন্যূনতম বিবেক সম্পন্ন মানুষ ও সমাজ কোনভাবেই মেনে নিতে পারে না। এহেন কাজে জড়িতদের অতি দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না দিলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর পীর সাহেব চরমোনাই হুজুরের নেতৃত্বে দেশময় তীব্র গণ-আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।

তিনি রমজানের প্রাক্কালে ফিলিস্তিনের পবিত্র নগরী জেরুজালেমে জোরপূর্বক মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের তীব্র নিন্দা জানান। গত দুই দিন ধরে ইসরাইলী সৈন্য কর্তৃক হত্যাযজ্ঞের বিরুদ্ধে মুসলিম বিশ্বের শাসকগোষ্ঠীর প্রতি ঐক্যবদ্ধ হয়ে ইসরাইলের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক লড়াইয়ের আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে দেওয়ান মিজানুর রহমান বলেন, গরীব, অসহায় ও মেহনতি মানুষ যেন সেহরি ও ইফতারিতে অর্ধাহারে-অনাহারে না থাকে সেদিকে সরকার সহ আমাদের সকলকেই লক্ষ্য রাখতে হবে। শ্রমিকের শ্রম কমিয়ে দিয়ে পুরাপুরি মজুরি প্রদান করা সকলের কর্তব্য। পবিত্র রমজান উপলক্ষে সকলকে মারামারি, হিংসা-বিদ্বেষ, পরনিন্দা ও চোগলখোরী ছেড়ে দিয়ে আত্ম সংযম অর্জন করতে হবে। প্রকাশ্যে পানাহার থেকে বিরত রাখতে দিনের বেলায় হোটেল রেস্তোরা বন্ধ রাখতে হবে। সকল ধরনের অশ্লীলতা ও বেহায়াপনা বন্ধ করতে হবে।সরকারের উচিত হবে রমজান মাসে রোজার পরিবেশ রক্ষায় আন্তরিকভাবে কাজ করা।

স্বাগত মিছিল ও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মোহাম্মদপুর থানা সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মাদ জাহাঙ্গীর আলম, প্রচার সম্পাদক আজাদ হোসেন, দফতর সম্পাদক শিকিম আলী ব্যাপারী, প্রশিক্ষণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল ইসলাম জিহাদ, ইসলামী যুব আন্দোলন মোহাম্মদপুর থানা সেক্রেটারি মাওলানা সোহেল আহমাদ, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন মোহাম্মদপুর থানা সভাপতি মুহা. মজিবুর রহমান, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা মমহানগর পশ্চিমের সভাপতি এইচ এম দেলোয়ার হোসাইন, মোহাম্মদপুর থানা সভাপতি মুহা. আব্দুর রহিম আল কারিমী সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

759Shares