| |

যানজটমুক্ত সিলেট নগরী নিয়ে হাতপাখার মেয়র প্রার্থীর ভাবনা

প্রকাশিতঃ ৩:২৩ অপরাহ্ণ | জুন ২৪, ২০১৮

সিলেট উত্তর-পূর্ব বাংলাদেশের একটি প্রধান শহর, একই সাথে এই শহরটি সিলেট বিভাগের বিভাগীয় শহর। এটি সিলেট জেলার অন্তর্গত। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন এলাকাই মূলত সিলেট শহর হিসেবে পরিচিত। সুরমা নদীর তীরবর্তী এই শহরটি বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপুর্ণ শহর। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মন্ডিত এ শহরটি দেশের আধ্যাত্মিক রাজধানী হিসেবে খ্যাত। এই আধ্যাত্মিক রাজধানীতে প্রথমবারের মতো ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতি রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই সিটি নির্বাচনে হাতপাখার মশাল তুলে দিলেন জননেতা প্রফেসর ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন খানের হাতে। যিনি আসন্ন ৩০ জুলাই সিটি নির্বাচনে হাতপাখা প্রতীক নিয়ে লড়বেন।

গতকাল শনিবার (২৩ জুন) সংগঠনের জেলা কার্যালয়ে হাতপাখার মেয়র প্রার্থী আগামী নগর বিনির্মাণ নিয়ে বলেন, ২০০২ সালে সিলেট সিটি কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠিত হয়। কিন্তু দুঃখজনক বাস্তবতা হলো, যতদিন গড়াচ্ছে নগরীর যানজট-দুর্ভোগ ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। পূর্বে নির্বাচিত মেয়রদের খামখেয়ালি ও দায়িত্বহীনতার অভাবে যানজটমুক্ত নগরী গড়ার প্রত্যয় দৃষ্টিগোচর হয়নি। পাশাপাশি অনেক সময় যানজটমুক্ত নগরী গড়ার অপচেষ্টায় রাতারাতি জনপ্রিয় হওয়ার মোহে নির্বাচিত মেয়রদের কার্যক্রম গরীবের পেটে চরম লাথি মেরেছে।

তিনি বলেন, সিলেটের ব্যস্ততম এলাকা জিন্দাবাজার ও বন্দরে অধিকাংশ সময় যানজট সৃষ্টি হয়। তিনি কারণ উল্লেখ করে বলেন, অতিরিক্ত হকার রাস্তায় ফুটপাতে বেচাকেনা ও অস্থায়ী দোকানের কারণে এমন যানজট সৃষ্টির কারণ। এছাড়া যানবাহনের পর্যাপ্ত পার্কিং ব্যবস্তা ও অনির্দিষ্ট স্থানে পার্কিং এর কারণে যানজট শহরে লেগে থাকে।

তিনি আরো বলেন, যানজট নিরসনের জন্য আমার কিছু সু-পরিকল্পনা রয়েছে। যদি জনগণের ভোটে সিটি মেয়র নির্বাচিত হই, তাহলে হকারদের জন্য নির্দিষ্ট স্থানে ব্যবসার সু-ব্যবস্থা এবং পার্কিং এর জন্য নির্দিষ্ট ব্যবস্থার উদ্যোগ নেবো ইনশা’আল্লাহ। আশা করি নগরবাসী যানজট ও কোলাহলমুক্ত সুন্দর সিলেট নগরী উপহার পাবেন।

তিনি আগামী নির্বাচনে সকলের দোয়া, সমর্থন ও সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।

747Shares