| |

তামাশার নির্বাচন অব্যাহত থাকলে আগামী নির্বাচন বর্জন করবো : পীর সাহেব চরমোনাই

প্রকাশিতঃ ৭:৫১ অপরাহ্ণ | জুন ২৯, ২০১৮

স্টাফ রির্পোটার : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলছেনে, গাজীপুর সিটি নির্বাচনে ভোট ডাকাতি, কারচুপি, কেন্দ্রে দখলের ঘটনা ঘটেছে। অসংখ্য ভোটার ভোট দিতে পারেননি। তারপরও ব্যালট পেপার শেষ হয়ে গেছে। এ অবস্থা দলীয় সরকারের কারণেই হয়েছে।

তিনি বলনে, নির্বাচন কমশিনরে মত একটি সাংবিধানিক পদে থেকে আজ্ঞাবহ নির্বাচন করে নিজের পদটিকে কলঙ্কতি করেছে। নির্বাচন কমশিন দেশবাসীকে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে ব্যর্থ হয়েছে। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে তবে খুলনা সিটির মত নির্বাচন হলে আগামীতে অনুষ্ঠিতব্য সিটিগুলোতে নির্বাচন বর্জন করা ছাড়া কোন পথ থাকবে না। তামাশার নির্বাচন করে কোটি কোটি টাকা অপব্যয় জনগণ সহ্য করবে না।

তিনি সন্ত্রাস, রাষ্ট্রীয় দুর্নীতি, কেন্দ্র দখলের রাজনীতি পরিহার করে মাদকমুক্ত ইসলামী সমাজ গঠনে আগামী জাতীয় নির্বাচনে হাতপাখার পক্ষে সকলের প্রতি ভোট বিপ্লব ঘটানোর আহ্বান জানান।

আজ (শুক্রবার) বিকেলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আয়োজতি ঈদ পূণর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মহানগর সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলমের সভাপত্বিতে আরো বক্তব্য রাখেন প্রেসিডিয়ামের অন্যতম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী, মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, যুগ্ম-মহাসচিব অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, আলহাজ্ব আলতাফ হোসেন, এবিএম জাকারিয়া, আলহাজ্ব আব্দুল আউয়াল, ডা. শহিদুল ইসলাম, এইচএম সাইফুল ইসলাম, শেখ মুহা. নুর-উন-নাবী প্রমূখ।

মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী বলেন, সরকার একদিকে শীর্ষসন্ত্রাসীদের পুরস্কৃত করে বিদেশ পাঠিয়ে দিয়েছে, অপর দিকে মিথ্যা মামলায় নারায়ণগঞ্জে আন্দোলনের নেতাকে কারাগারে প্রেরণ করছে। এরূপ হয়নানি বন্ধ করতে হবে।

মহাসচিব তাঁর বক্তব্যে মানুষ গড়ার কারিগরদের যৌক্তিক দাবী মেনে নিয়ে রাস্তা থেকে বিদ্যালয়ে পাঠানোর ব্যবস্থা করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা ইমতিয়াজ আলম বলেন, মাদকে দেশ সয়লাব হয়ে আছে। মাদক তরুণ প্রজন্মকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে। এর থেকে প্ররিত্রাণ পেতে হলে আগামী নির্বাচনে হাতপাখায় ভোট ভোট বিপ্লব ঘটাতে হবে।

2465Shares