| |

জোট গঠনের টানাটানিতে ইসলামী আন্দোলনের অবস্থান প্রকাশ

প্রকাশিতঃ ১২:৫৮ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৭, ২০১৭

আবদুল ওয়াহাবঃ ঘনিয়ে আসছে জাতীয় নির্বাচন। ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনকে সামনে রেখে সরগরম হাসিনা, খালেদা ও এরশাদের জোটের রাজনীতি। কিন্তু ক্লিন ইমেজ সংকটে ভুগছে আলোচিত জোটগুলো। জোটের কর্তারা বারবার এদেশের জনগণকে প্রতারিত করেছেন আশার বেলুন দেখিয়ে।শোষণ করেছেন ইস্ট ইন্ডিয়ান সাম্রাজ্যবাদীদের কায়দায়। তাই জনগণ খুঁজছে বিকল্প রাজনৈতিক শক্তি।সুষ্ঠুভাবে মতামত তথা ভোট প্রদানের সুযোগ পেলে এসব শোষকদের বিরুদ্ধে জনবিষ্ফোরণ ঘটবে বলে অভিজ্ঞ মহলের ধারণা।

স্বাধীনতা পরবর্তী ফ্যাসিবাদী শাষকদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে জুলুম নিপীড়নকে সংগ্রামের অংশ হিসেবে সহ্য করে ইতোমধ্যে দেশ ও জাতির স্বার্থে বুকটান করে বিদেশীদের পদলেহনকারী দলগুলোর সামনে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে পীর সাহেব চরমোনাই নেতৃত্বাধীন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। স্বৈরাচারী এরশাদের নৈরাজ্যবাদ, বিএনপি জোটের লুটপাটের মহোৎসব, আওয়ামী জোটের ফ্যাসিবাদী চরিত্রে ভর করে ভারতীয় দালালদের দেশ বিকিয়ে দেয়ার তৎপরতার বিরুদ্ধে জনতাকে সাথে নিয়ে রাজপথে সংগ্রামের মাধ্যমে দেশবাসীর মনে শক্ত মেরুদণ্ড সম্পন্ন চরিত্রের বিকাশ ঘটায় ইসলামী আন্দোলন। টিপাই বাঁধের মাধ্যমে বাংলাদেশকে মরুকরণের বিরুদ্ধে ভাসানী পরবর্তী ঐতিহাসিক লংমার্চ, তেল গ্যাসসহ প্রাকৃতিক সম্পদ বিদেশে পাচারের ষড়যন্ত্র জাতিকে সাথে নিয়ে রোখাসহ দেশের মানুষের পরম শান্তির জায়গা ধর্মীয় স্বাতন্ত্র্যতা রক্ষায় সবার আগে অভিভাবকের দায়িত্ব নিয়ে কাজ করে দলটি ইতোমধ্যে জনগণের সামনে আশার সঞ্চার করেছে।

এসব উজ্জ্বল রেকর্ডকে সামনে রেখে দলটিকে সাথে নিয়ে নতুন জোট গঠনের জন্য আ’লীগ-বিএনপি-জাতীয় পার্টি-সহ আরো কয়েকটি দল ইতোমধ্যে টানাটানি শুরু করছে। সবাই ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-কে তাদের জোট নিতে আগ্রহী।

মুফতি আমিনী রহ. এর রেখে যাওয়া ইসলামী ঐক্যজোট, শায়খুল হাদিস আজিজুল হক রহ. প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ও মাওলানা শাহ আতাউল্লাহর নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-কে নিয়ে জোট গঠনে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

ইতিমধ্যে আ’লীগ-বিএনপি’র পক্ষ থেকেও অনেক বড় প্রস্তাব আসছে। ৬০/৭০ আসন বরাদ্দের চিঠি আসছে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দের কাছে। আসছে কোটি কোটি কালোটাকার লোভনীয় অফার। এসব থেকে মুখ ফিরিয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলেন, ‘আল্লাহর আইনেই রয়েছে মানবতার মুক্তি। আমরা আল্লাহর আইনকে তথা ইসলামকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় প্রতিষ্ঠা করতে চাই। এতে যারা রাজি হবে, তাদের সঙ্গে জোট হতে পারে। আদর্শের প্রশ্নে আমরা ছাড় দিতে পারিনা। ইসলাম আল্লাহর বিধানকে উঁচু করে তোলার জন্য এসেছে, খোদায়ী আইনের প্রতিদ্বন্দ্বীদের ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহার হওয়ার জন্য নয়। জাতীয় মুক্তির লক্ষ্যে পৃথক একটি ইসলামী জোট করার চিন্তা আমাদেরও আছে।’

5212Shares