| |

জনদুর্ভোগ ও যানজট সৃষ্টিকারী নগর উন্নয়নের কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে

প্রকাশিতঃ ৯:২২ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ০৫, ২০১৭

আইএবি নিউজ: নগর উন্নয়নের নামে সমন্বয়হীন অপরিকল্পিত খোঁড়াখুড়ি ও রাস্তার উপর বড় বড় ড্রেনেজের পাইপ রাখার কারণে রাজধানীতে চলাচলকারী জনগণের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে সব ধরণের যান বাহন। সৃষ্টি হচ্ছে ভয়াবহ যানজট। নগরবাসীর কাছে এ যানজট এখন সীমাহীন দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁিড়য়েছে। ঘণ্টার পর ঘন্টা চলে যায় কর্মহীন বেকার ভাবে। এতে সামগ্রিক অর্থনীতি মারাত্মক ক্ষতির সম্মখীন হচ্ছে। তার সাথে সাথে ধূলোবালিতে রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে নারী-শিশু সবাই। জনস্বাস্থ্য দিন দিন ঝুঁকির দিকে পতিত হচ্ছে। পথচারীদের জন্য ফুটপাত নির্মাণ করা হলেও তা দখল করে দোকানপাট, গ্যারেজ, রেস্টুরেন্ট গড়ে তোলা হয়েছে সিটিকর্পোরেশনের এক শ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তাদের যোগসাযোশে। আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী পুলিশ তাদের থেকে নিয়মিত চাঁদা নেয়। লোক দেখানো উচ্ছেদ অভিযান করলেও এর কোন স্থায়ী সমাধান করা হয় না। অবৈধ দখলে অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে রাস্তা, পার্ক, খেলার মাঠ ও ওয়াকওয়েসহ বেদখল করে সাধারণ মানুষের সমস্যা তৈরী করা হয়। মেয়র আনিসুল হকের অসুস্থ্যতার সময় প্যানেল মেয়র দেয়া হলেও আজ পর্যন্ত প্যানেল মেয়রের দৃশ্যমান কোন কার্যক্রম পরিলক্ষিত হয়নি। যা নগরবাসীর জন্য অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের বিষয়। নিয়মিত চলমান কাজগুলোকে তদারকি না করে লুটপাট ও ভাগ বাটোয়ারায় ব্যস্ত সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তরা।

আজ মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর’১৭ ইং) বিকাল ৪টায় পল্টনস্থ নগর কার্যালয়ে আগামী ৮ ডিসেম্বর বাদ জুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট থেকে ‘দ্রব্য মূল্যের উর্ধগতি রোধ, গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির পায়তারার’ প্রতিবাদে আহুত বিক্ষোভ মিছিল সফল করার জন্য প্রস্তুতি সভায় সভাপতির বক্তব্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ উপর্যুক্ত কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, জনদুর্ভোগ  ও যানজট সৃষ্টিকারী নগর উন্নয়ন নির্দৃষ্ট সময় সীমা ও নির্ধারিত বাজেটের মধ্যে দ্রুত শেষ করতে হবে। তা না হলে বাজেট ক্রস করলে তার খেসারাত দিতে হবে নগরবাসীকেই। অপ্রতিরোদ্ধ দুর্নীতি, দুঃশাসন, কালোবাজারী, মজুতদারী ও মধ্যসত্ব ভোগীদের বেপরোয়া স্বভাবের কারণে আজকে সরকারের প্রতি দেশবাসীর আস্থা তলানিতে ঠেকেছে। বাজারের উপর সরকারের কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। দ্রব্য-মূল্যের উর্ধ্বগতির লাগাম টেনে ধরতে চরম ভাবে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। নিত্য ব্যবহার্য পন্যের আকাশচুম্বি মূল্যে খেটে খাওয়া মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। বিদ্যুৎ ও গ্যাসের সরবরাহ নিশ্চিত না করে দফায় দফায় বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধির পায়তারা বন্ধ করতে হবে। এ সরকারের আমলে বিদ্যুতের দাম বেড়েছে আট বার। যা অতীতের সকল রেকর্ডকে অতিক্রম করেছে।

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE