| |

চরমোনাই মাহফিলে যোগ দিতে বাংলাদেশে দেওবন্দের চার শীর্ষ উস্তাদ

প্রকাশিতঃ ১:৫৭ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৬, ২০১৮

তাওহীদ মাদানী দেওবন্দ থেকে

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর ও শায়েখ চরমোনাই মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমের বিশেষ আমন্ত্রণে ৪ দিনের সফরে আজ বাংলাদেশে আসছেন ভরতের ঐতহ্যবাহী দ্বীনি বিদ্যাপিঠ দারুল উলুম দেওবন্দের শীর্ষ তিন উস্তাদ।

তারা হলেন- শাইখুল আরব ওয়াল আজম হজরত হুসাইন আহমদ মাদানি রহিমাহুল্লাহ-এর খাস শাগরেদ, আল্লামা ইবরাহিম বলিয়াভি রহিমাহুল্লাহ-এর বিশেষ খলিফা, দীর্ঘ দিনের শায়খে মুসলিম শরিফ, দারুল উলুম দেওবন্দের বর্তমান শায়খে সানী, হজরত আল্লামা শায়েখ কমরুদ্দিন আহমদ হাফিযাহুল্লাহ।দ্বিতীয় জন হলেন- দারুল উলুম দেওবন্দের অন্যতম সিনিয়র মুহাদ্দিস ইবনে হাজার খ্যাত শায়খে মুসলিম শরীফ আল্লামা হাবীবুর রহমান আজমী হাফিযাহুল্লাহ। এবং তৃতীয় জন হলেন- দারুল উলুম দেওবন্দের দারুল ইক্বামা প্রধান, পীর জুলফিকার আলী নক্বশবন্দী দা. বা. এর অন্যতম খলীফা আল্লামা মুনীরুদ্দীন আহমাদ উসমানী নক্বশবন্দী হাফিযাহুল্লাহ।

এর আগে শায়েখ চরমোনাইর আমন্ত্রণে অনুষ্ঠিতব্য ফাল্গুনের মাহফিলে যোগ দিতে গত বুধবার ঢাকায় পৌঁছেছেন দেওবন্দের অন্যতম সিনিয়র মুহাদ্দিস, সাবেক নাযেমে তালিমাত, শায়খুল মা’কুলাত আল্লামা মুজিবুল্লাহ কাসেমি হাফিযাহুল্লাহ।

চরমোনাইর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়া উক্ত উস্তাদদেরকে এগিয়ে দিতে সঙ্গে ছিলেন দেওবন্দের অন্যতম শিক্ষার্থী নাঈম মুহাম্মাদ জাফর, মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ, মুহাম্মাদ মুঈনুল ইসলাম গাজী, মুহাম্মাদ তাওফীক খন্দকার ও মুহাম্মাদ আব্দুল হাকীম।

শায়খগণ ভারতীয় সময় আজ বেলা ১টা ৪০মিনিটে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিউ দিল্লির ইন্দিরাগান্ধী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর ত্যাগ করে বিকেল ৪টা ২০মিনিটে ঢাকার শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করার কথা।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে উক্ত হজরতদের স্বাগত জানাতে উপস্থিত থাকবেন ঢাকা রামপুরার ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান জামিয়া কারীমিয়া আরাবিয়ার নাযেমে তালীমাত মুফতী হেমায়তুল্লাহ কাসেমীর নেতৃত্বে ঢাকা গুলশান নতুন বাজার জামিয়া সাঈদিয়া কারীমিয়া (সাঈদ নগর মাদ্রাসা)-এর মুহতামিম শেখ ফজলে বারী মাসউদ ও সিনিয়র মুদাররিস মুফতী আব্দুল আজীজ কাসেমী, মুন্সিগঞ্জ মারকাযুল কারীম ইসলামী রিসার্চ সেন্টার-এর প্রিন্সিপ্যাল মুফতী ছানাউল্লাহ কাসেমী ও মারকাযু দাওয়াতিস সুন্নাহ ঢাকার ইফতা বিভাগের মুশরিফে আলা মাওলানা হুসাইন আহমাদ৷

চরমোনাই মাহফিলে হজরতদের খেমতের তদারকিতে থাকবেন জামিয়া কারীমিয়া আরাবিয়ার নাযেমে তালীমাত মুফতী হেমায়তুল্লাহ কাসেমী। তিনি জানিয়েছেন, দেওবন্দের হজরতগণ আজ সন্ধ্যায় ঢাকা সদরঘাট থেকে লঞ্চ যোগে চরমোনাই মাহফিলের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন। চরমোনাইতে হজরতগণ উলামা মজলিস, ত্বলাবা মজলিস ও আম মজলিসসহ কয়েকটি পর্বে বয়ান পেশ করবেন বলে জানা গেছে।

অপরদিকে দেওবন্দের মুফতিয়ে আজম হজরতুল আল্লাম মুফতি হাবিবুর রহমান খায়ারাবাদি সাহেবকেও শায়েখ চরমোনাই বিশেষভাবে আমন্ত্রণ করেছিলেন বলে জানা যায়। হজরত খায়রাবাদি সাহেব এ ব্যাপারে জানান, ‘পীর সাহেবকে আমি অন্তর থেকে মুহব্বত করি। উপরন্তু তিনি আমার খলিফাও বটে। পীর সাহেব আমাকে চরমোনাই মাহফিলে বিশেষভাবে দাওয়াতও করেছিলেন। আমারও যাওয়ার পরিপূর্ণ এরাদা ছিলো। চরমোনাইতে গেলে আমি দেওবন্দের ঘ্রাণ পাই। কিন্তু গত কিছুদিন পূর্বে হঠাৎ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতসহ আরো বিশেষ কয়েকটি প্রোগ্রামকে লক্ষ্য করে আমাকে বাংলাদেশে যেতে হয়। যেই সফরটিও ছিল বেশ লম্বা। সফর শেষ করে এসেছি মাত্র কিছুদিন হলো, তাই এই অল্প সময়ের ব্যবধানে আবার বাংলাদেশে যাওয়া আমার জন্য কষ্টকর। ডাক্তারগণও আমাকে বার্ধক্যের দরুন ঘনঘন সফর থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। আল্লাহ পাক সুস্থ রাখলে পরবর্তীতে চরমোনাই যাওয়ার ইচ্ছে আছে ইনশাআল্লাহ।

হজরত মুফতি হাবীবুর রহমান খায়রাবাদি সাহেব দা.বা. উপরোক্ত বিষয়গুলো জানিয়ে শায়েখ চরমোনাই  বরাবর একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। মাওলানা মুনীরুদ্দীন আহমাদ সাহেব চিঠিটি পীর সাহেব চরমোনাইয়ের হাতে পৌঁছে দেবেন বলে জানা গেছে।

মাহফিল শেষে হজরতগণ আগামী ১০ মার্চ দেওবন্দের উদ্দেশ্য ঢাকা ত্যাগ করবেন।

5083Shares