| |

গ্রীক মূর্তি অপসারণ না করলে সরকারের পতন ঘন্টা বেজে যাবে: মুফতী ফয়জুল করীম

প্রকাশিতঃ ৮:৫৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৮, ২০১৭

আইএবি নিউজ ডেস্ক: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মু. ফয়জুল করীম বলেছেন, ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে সর্বোচ্চ বিচারালয় প্রাঙ্গণে গ্রিক দেবীর মূর্তি স্থাপন করে মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভুতিতে চরম আঘাত করা হয়েছে। জাতীয় ঈদগাহঘেঁষে লেডি মূর্তি স্থাপন করে মুসল্লিদের নামায বিনষ্ট করার চেষ্টা করা হচ্ছে। জাতীয় ঈদগাহ’র সম্মান রক্ষার্থে অবিলম্বে লেডি মূর্তি অপসারণ করুন অন্যথায় সর্বত্র কঠোর আন্দোলন গড়ে উঠলে সরকারের আখের রক্ষা হবে না।

তিনি বলেন, মূর্তি অপসারণ না করলে যেভাবে দেশময় ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে সরকারের বিরুদ্ধে সে জনমত চলে গেলে সরকারের পতন ঘন্টা বেজে যাবে। মুসলমানদেরকে পৌত্তলিকতার দিকে নিয়ে যেতে মূর্তি স্থাপনে সরকার কোন বক্তব্য দিচ্ছে না। ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণসহ মোড়ে মোড়ে স্থাপিত সকল মূর্তি ভেঙ্গে দিতে হবে। মূর্তি বাংলাদেশ ও মুসলমানের সংস্কৃতি নয়। এটা ভারতের সংস্কৃতি। ইসলাম এসেছে মূর্তিকে ভেঙ্গে দিয়ে একত্ববাদ প্রতিষ্ঠার জন্য। কাজেই মুসলমানদের চিন্তা-চেতনা বিনাশী মূর্তির সংস্কৃতি থেকে সরকারকে বের হয়ে আসতে হবে।

তিনি আরো বলেন, সরকারের কতিপয় মন্ত্রী, এ্যার্টনী জেনারেলসহ অনেকে মূর্তির পক্ষে অবস্থান নেয়ায় মৃত্যুর পর তাদের জানাজা কোন মুসলমান পড়বে না এবং তাদের সাথে কেউ আত্মীয় করবে না। ভবিষ্যতে কেউ মূর্তির পক্ষে অবস্থান নিলে তাদেরও কেউ জানাজা পড়বে না। তিনি অবিলম্বে মূর্তি অপসারণের দাবি জানিয়ে বলেন, অন্যথায় আন্দোলন সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে সরকারের সামাল দেয়া কঠিন হবে।

বুধবার (৮ মার্চ) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ অভয়নগর থানা শাখা কর্তৃক আয়োজিত নওয়াপাড়া ইনস্টিটিউট মাঠে বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় সংগঠনের জেলা ও থানা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE