| |

উলামায়ে কেরামদের প্রতি খোলা চিঠি : প্রসঙ্গ জাতীয় নির্বাচন

প্রকাশিতঃ ১:১৫ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ০৫, ২০১৮

শেখ ফজলুল করীম মারুফ : বাংলাদেশের রাজনীতির সম্ভবত সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ মুহুর্ত এখন। ২০২১ এ স্বাধীনতার ৫০ বছর পুর্তি হবে। অথচ এখনো বাংলাদেশে শান্তিপুর্ণ নির্বাচন পদ্ধতি প্রতিষ্ঠিত হয়নি। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলো আজো দৃঢ়তার সাথে দাঁড়াতে পারেনি। রাজনৈতিক সংস্কৃতি এখনো তৈরী হয়নি।

সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার আজো প্রতিষ্ঠিত হয়নি।

এমন মুহুর্তে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনে সঠিক নেতৃত্ব বাছাই করতে পারা এবং সঠিক নেতৃত্ব বাছাই করার ওপরেই নির্ভর করছে স্বাধীনতার ৫০তম বর্ষে বাংলাদেশ একটি সুখী-সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে স্বীকৃত হবে কি না?

এমন গুরুত্বপুর্ণ সময়ে জাতীর জন্য দরকার ছিলো একদল দুনিয়াবিমুখ, স্বার্থহীন আল্লাহওয়ালা রাহবার ও পথপ্রদর্শকের। যারা সকল দ্বেষ-বিদ্বেষ, রাগ-অনুরাগের ঊর্ধ্বে উঠে জাতীকে সঠিক ও সরল পথ দেখাবেন। নিজেরা সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার রাজনৈতিক দায়িত্ব গ্রহণ না করলেও এই কাজের জন্য যথার্থ রাজনৈতিক শক্তিকে সমর্থন করবেন।

ভারতীয় উপমহাদেশের কওমী উলামায়ে কেরামকে সর্বদাই দুনিয়াবিমুখ, স্বার্থহীন আল্লাহওয়ালা, সকল প্রকার দ্বেষ-বিদ্বেষ, রাগ-অনুরাগের ঊর্ধ্বের রাহবার ও পথপ্রদর্শক হিসেবে মনে করা হয়। বাংলাদেশের কওমী উলামাগণও এদেশের মানুষের কাছে নিঃস্বার্থ কল্যাণকামী মুরুব্বী হিসেবে ব্যাপকভাবে মান্য।উলামায়ে কেরামের নির্দেশনা মানুষ এখনো “জ্বী হুজুর” বলে বিনা বাক্যে মান্য করে।

তাই হজরত উলামায়ে কেরামের কাছে বিনীত আবেদন থাকবে, জাতীর এই ক্রান্তিকালে নিজেদের যথার্থ ভূমিকা পালন করুন। আমাদের কার্যকর ও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব ও কাজ থেকে আমাদেরকে গাফেল করতে কোন কোন বদকার আমাদের মাথায় বাড়ি দিয়েছে, কেউ কেউ আমাদের সন্তানদের আহত করেছে। আমরা এতে ব্যথিত। নিশ্চয় আমাদের মনে ক্ষোভের জন্ম হয়েছে। কিন্তু তাতে কি আমাদের দায়িত্ব ভুলে যাবো?

অবশ্যই না। বরং জাতীর এই দুর্যোগকালে জাতীকে সঠিক নেতৃত্ব নির্বাচনে নির্দেশনা দিতে হবে। এবং যারা আমাদের সন্তানদের আহত করেছে তাদের বিচার চাইতে নয় বরং নিজেরাই বিচার প্রয়োজনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ক্ষমতা অর্জনে প্রত্যয়ী হবো।

মনে রাখতে হবে, যদি উলামায়ে হজরত এই দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হন তাহলে শাপলা, টঙ্গীর চেয়েও ভয়াবহ অবস্থা সামনে অপেক্ষা করছে।

লেখক : আলেম গবেষক ও সমাজ বিশ্লেষক সভাপতি, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন

2112Shares