| |

ইশা ছাত্র আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ সদরের থানা সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিতঃ ৮:৩৬ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টারঃ শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি’১৮ ইং) বিকাল ৩টায় ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ সদর থানার সভাপতি মুহা. শফিকুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মুহা. মাহদী হাসান এর সঞ্চালনায় থানা সম্মেলন‘১৮ অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইশা ছাত্র আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি মুহা. ইমদাদুল হক। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ শহর শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি মুহা. দেলোয়ার হোসাইন।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকার। ৭১ এর চেতনায় ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে শিক্ষার প্রতিটি স্তরে ধর্মীয় শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা প্রয়োজনীয় হয়ে দাড়িয়েছে । ধর্মীয় শিক্ষার অভাবে জাতি অনৈতিকতার চরম শিখড়ে উপনীত। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা থেকে শুরু করে পাবলিক সার্ভিস কমিশন নিয়োগ প্রতিটি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস হচ্ছে। সরকার প্রশ্নফাঁস বন্ধ করতে না পেরে মেধাহীন জাতি তৈরি করছে। অপরদিকে ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন করতে হচ্ছে পরীক্ষার রুটিন পাবার আশায়। ৯০এর পর সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সহ সকল সরকারী কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। শিক্ষার নামে শিক্ষকগণ বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ করে বাধ্যতামুলক কোচিং করার খরগ অভিভাবকদের মাথায় চাপিয়ে দিচ্ছে। যৌন নিপীড়নের শিকার হচ্ছে নারী শিক্ষার্থীরা। গত ৩১ শে জানুয়ারী দেওভোগ হাজী উজির আলি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী মোনালিসাকে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়। দু:খের বিষয় খুনি আজও ধরা ছোয়ার বাইরে। তিনি দাবি করেন, অবিলম্বে খুনিকে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। তিনি আরও দাবি করেন, তোলারাম কলেজকে পুর্নাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তর, অবিলম্বে ছাত্র সংসদ নির্বাচন, কওমী শিক্ষার সনদ প্রদান এবং শিক্ষার সকল ব্যয়ভার রাষ্ট্রকেই বহন করতে হবে। সচেতন ছাত্রদেরকে তিনি ইশা ছাত্র আন্দোলন-এর পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাহিলিয়াতের অবসান ও ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে শরীক থাকার আহবান জানান।

প্রধান বক্তা তার বক্তব্যে বলেন, স্বাধীনতার মূলনীতি – সাম্য, মানবিক মযাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় দুই জোট ব্যর্থ, সুতরাং প্রকৃত সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর পীর সাহেব চরমোনাইয়ের নেতৃত্বে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান।

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, সত্যের প্রতিষ্ঠা ও অন্যায়ের প্রতিবাদ করার জন্যই আমাদের সংগ্রাম।  আমরা সর্বদা ছাত্রদের অধিকার আদায়ে রাজপথে ছিলাম, আছি এবং থাকব ইনশাআল্লাহ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের জীবন নিয়ে যেভাবে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে তা কোন ভাবেই একটি জাতির জন্য কাম্য নয়। সাত কলেজের প্রায় ২লক্ষ শিক্ষার্থীই আগামী নির্বাচনে সরকার পরাজয়ের কারণ হবে। তিনি দাবি করেন, শিক্ষার্থীদের স্বার্থে ‘৬২এর শিক্ষা আন্দোলন এ প্রস্তাবিত প্রতিটি ধারা-উপধারাগুলো পুর্নাঙ্গভাবে অচিরেই বাস্তবায়ন করতে হবে, অন্যথায় তীব্র আন্দোলনের মাধ্যমে অধিকার আদায় করে নেওয়া হবে। সচেতন ছাত্রদেরকে তিনি ইশা ছাত্র আন্দোলন-এর পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাহিলিয়াতের অবসান ও ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে শরীক থাকার আহবান জানান।

উক্ত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ সদর থানা সভাপতি হাফেজ মুহা. আমিনউদ্দীন, দ্বীনি সংগঠনের ছদর শেখ মুহা. হাবিবুল্লাহ, ইসলামী আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ শহর শাখার ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা মুহা. আমির হোসাইন, আহম্মদ কবির, মুহা. মিরাজুল ইসলাম, মুহা. ওমর ফারুক, মুহা. ইকবাল হোসাইন, মুহা. শরিফ হোসাইন, মুহা. সোহেল হোসাইন, মুহা. সাইফুল ইসলাম, মুহা. আবদুর রাজ্জাক, মুহা. তাজুল ইসলাম, মুহা. ফাহিম, নোমান আহম্মদ, আবুল হাসেম, আবদুস সালাম সহ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, ইসলামী যুব আন্দোলন, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন এর ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও প্রতিষ্ঠান থেকে আগত সদস্য, কর্মী ও দায়িত্বশীলবৃন্দ।

সম্মেলন শেষে ২০১৮ সেশনের নতুন কমিটিতে সভাপতি: মুহাম্মাদ মাহদী হাসান, সহ-সভাপতি: আহমাদ কবির ও সাধারণ সম্পাদক: মুহাম্মাদ মিরাজুল ইসলাম এর নাম ঘোষণা করা হয়।

 

0Shares